us open 2018:us open apologises after alizé cornet penalised for removing shirt | জোকার করলে লীলা, আর কর্নেট করলে… অথবা খালি গা এবং ভেজা জার্সি

0
14


ইউ এস ওপেনের টেনিস কোর্টে বিতর্ক। না, ভুল খেলা, অখেলোয়াড় সুলভ আচরণ বা কোড অফ কন্ডাক্ট ভাঙার জেরে নয়। কোর্টে এবার পোশাক বিতর্ক।

আসলে, মঙ্গলবার নিউ ইয়র্কের ৩৫ ডিগ্রি গরমে তখন গা দিয়ে টপ টপ করে ঘাম গড়িয়ে পড়ছিল ফরাসি খেলোয়াড়, বছর ২৮-এর অ্যালিজ কর্নেটের। খেলার মাঝে ১০ মিনিটের

ব্রেক নিয়ে ঠান্ডা হয়ে আসার পর তিনি খেয়াল করেন, শার্টটি তিনি উল্টো পরেছেন। তাই সময় নষ্ট না করে কোর্টে দাঁড়িয়েই বদলে নিয়েছিলেন সেটি।

ব্যস, তাতেই উঠেছে ‘গেল গেল’ রব। শুরু হয়েছে বিতর্ক। কোর্টের মাঝে দাঁড়িয়ে কেন একজন মহিলা খেলোয়াড় খুলে ফেললেন তাঁর শার্ট? কেন সর্বসমক্ষে দেখা গেল তাঁর লাল-কালো স্পোর্টস ব্রা?

নিয়ম অনুযায়ী, মহিলা খেলোয়াড়রা কোর্টে দাঁড়িয়ে পোশাক বদল করতে পারেন না। যদিও পুরুষ খেলোয়াড়রা অত্যন্ত সহজেই সেটি করতে পারেন।

কিন্তু অ্যালিজ কর্নেট সময় নষ্ট না করতেই, কোর্টে দাঁড়িয়ে ১০ সেকেন্ডের কম সময়ে উল্টে নিয়েছিলেন তাঁর পিঙ্ক-স্ট্রাইপ শার্টটি। তিনি তো পোশাক বদল করেননি। কিন্তু আম্পায়ার ততক্ষণে সেটিকে নিয়মভঙ্গ বলে উল্লেখ করে ফেলেছেন। চেয়ার আম্বায়ার তাঁকে অভিযুক্ত করেন। অ্যালিজকে ফাইন পেনাল্টি করা হয়।

কোর্টে গরম তাড়াচ্ছেন জোকার

কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, নোভাক জকোভিচরা যখন গরম সহ্য করতে না পেরে, গায়ে আইস-প্যাক দিয়ে বসে থাকে, তখন কেন বিতর্ক হয় না? তখনটি সেটি খবর।

কেন তখন ‘কোড ভায়োলেশন’ বলে সেটিকে চিহ্নিত করা যায় না? তবে কি টেনিস কোর্টেও পুরুষতান্ত্রিক সমাজের দাপট?

যদিও, বুধবার তীব্র বিতর্কের জেরে চাপের মুখে ইউ এস ওপেন কর্তৃপক্ষ অ্যালিজেকে পেনাল্টির জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়েছে। বলা হয়েছে, যে কোনও খেলোয়াড়ই তাঁদের প্লেয়ার চেয়ারে বসে পোশাক বদলাতে পারেন। একে কখনওই শৃঙ্খলাভঙ্গ বলে ধরা হবে না।





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here