ganesh chaturthi:special article on ganesh chaturthi | গণেশের বাহন কেন ইঁদুর, জানেন?

0
15


কমলেশ ডি প্যাটেল (দাইজি)

গণেশ চতুর্থী উপলক্ষ্যে উত্‍সবে মেতেছে গোটা দেশ। বিশেষত পশ্চিম ভারতে গণেশ চতুর্থী খুবই ধুমধাম করে পালিত হয়। আমাদের রাজ্যেও গত কয়েক বছরে বেড়েছে গণেশ পুজো।

হিন্দুদের ঘরে গণেশ চতুর্থীর দিন আনন্দে ভরে যায়। খাওয়া-দাওয়া, হই-হুল্লোড়, ঘর সাজানো সবই চলতে থাকে পুরোদমে। ছোটদের কাছেও গণেশের একটা আলাদা আবেদন রয়েছে। তাঁর চেহারা, তাঁকে নিয়ে পুরাণের সব গল্প– এ সবই ছোটদের বিশেষ ভাবে আকর্ষণ করে। হাতির মাথায় থাকায় তার উদাহরণ দিয়ে ছেলে-মেয়েদের শিক্ষা দেন অনেক বাবা-মা। তাঁরা বলেন, ‘বড় বড় কান এবং ছোট্ট একটা মুখ। অর্থাত্‍ কথা কম বলো, শোনো বেশি।’

গণেশ মূর্তি দেখে তাঁর ভক্তদের মন আনন্দে ভরে যায়। আপনি ভক্ত হোন বা না হোন, গণেশের চেহারা আপনার মুখে হাসি ফোটাবেই। এটাই আমাদের উদ্দেশে গণেশের প্রথম শিক্ষা, ‘আনন্দে থাকো সর্বদা’। তাঁর চেহারা মানুষের মতো হলেও হাতির মতো মাথা। এটাই হল ধর্মীয় যাত্রার প্রতিরূপ, পশু থেকে মানুষে বিবর্তন।

গণপতি বাপ্পা

আমাদের সবার মধ্যেই বন্য পশুর প্রবৃত্তি রয়েছে। প্রেম, ক্ষমা করার শক্তি, মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা– এসবই মানুষকে পশুর থেকে উন্নতস্তরের জীব করে গড়ে তুলেছে। এভাবেই নিজেকে উন্নত করতে করতে আমরা সেই অপার শক্তির সঙ্গে নিজেকে মিশিয়ে দিতে পারি। এই যাত্রাটারই প্রতিনিধিত্ব নিজের মধ্যে করেছেন পার্বতী-পুত্র গণেশ।

এবার আসা যাক গণেশের বাহন ইঁদুরের প্রসঙ্গে। আমাদের বিবেকের সম্প্রসারণ এবং শারীরিক প্রবৃত্তিকে সুপ্ত করে রাখার ধর্মীয় সফর, তারই শিক্ষা পাওয়া যায় গণেশের বাহনের মধ্যে। মানুষের অন্যতম প্রধান শত্রু হল তার ইগো বা অহংকার। ইগোর শুদ্ধিকরণ সম্ভব হলে মানবিকতা, সরলতা ও শুদ্ধতার বৃদ্ধি ঘটে। তার প্রভাব পড়ে আমাদের ব্যবহারেও। এই শিক্ষা আমাদের দেন গণপতি বাপ্পা।

কমলেশ ডি প্যাটেল-এর সঙ্গে যোগাযোগ করুন
daaji@heartfulness.org

কমলেশ ডি প্যাটেল-এর সম্পর্কে আরও জানতে ক্লিক করুন:
www.daaji.org





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here