threatened to rape: hand over keys or we will rape you, dacoits tell 59-year-old – ‘আলমারি চাবি দাও, না হলে ধর্ষণ করা হবে’, বৃদ্ধাকে হুমকি দুষ্কৃতীদের

0
14


এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: দিনের পরিস্কার আলোয়, ব্যবসায়ীর বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে ‘অভিনব’ উপায়ে শাসিয়ে প্রচুর টাকা লুঠ করে চম্পট দিল মুখোশধারী তিন দুষ্কৃতী। ভোপালের কোলারের এই ঘটনায় অভিযোগকারিনী ওই ব্যবসায়ী স্ত্রীর অভিযোগ, আলমারির মধ্যে থাকা টাকা ও গয়নার বক্সের চাবি না দিলে ধর্ষণ করা হবে বলে হুমকি দেয় ওই দুষ্কৃতীরা।

৫৯ বছরের ওই মহিলা আরও জানান, তিনজনের এক চোর তাঁকে বলে, ‘চলো, আমরা তোমাকে ছেড়ে দিলাম, তোমাকে আমাদের মায়ের বয়সেরই মনে হচ্ছে। কিন্তু অন্যরকম চালাকি করতে যাবেন না। মুখ বন্ধ করে চাবিটা দিয়ে দিন।’ পুলিশ জানিয়েছে, আলমারির চাবি খুলে মোট ৬০ হাজার টাকা ও ১০০-১২০ গ্রাম সোনার গয়না ডাকাতি করে ওই দুষ্কৃতীরা। আতঙ্কিত ওই মহিলা ও তাঁর স্বামীর অভিযোগ, দিনের ব্যস্ত সময়ে বাড়িতে ডাকাতি করে নিয়ে গেল, কেউ কিছুই বুঝতে পারল না প্রতিবেশীরা।

দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেননি ওই মহিলা। তবে টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, তাঁরা বাড়িতে ঢুকেই আলমারির চাবি চায়। দিতে না চাইলে, ধর্ষণ করার হুমকি দিয়ে ডাকাতি করে পালায়। এখনও পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করেনি।

ঘটনাটি ঘটে দুপুর ২.১৫ নাগাদ। ভোপালের নিউ মার্কেটের দোকান থেকে ওই সময়ে বাড়ি ফেরেন ওই ব্যবসায়ী। মহিলার কথায়, সেই সময় বাড়িতে তিনি একাই ছিলেন। দরজার বেল বেজে উঠলে পিপহোল দিয়ে দেখেন, একজন যুবক দরজার সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছে। তখনও মুখোশ পড়ে ছিল না সে। ভরাদুপুরে রাস্তা ও বাড়ির চারিদিকে বেশ জমজমাটই ছিল। সেই মনে করে দরজা খুলতেই, দুদিক থেকে দুজন কালো মুখোশ পড়া লোক ঢুকেই আচমকা মারধর শুরু করে। এরপরই তৃতীয় ছেলেটি মাস্ক পড়ে ভিতরে ঢুকে পড়ে। ভয়ে চিত্‍কার করতে যাবেন, সেইসময় ছুড়ি দেখিয়ে বলে, মুখ বন্ধ করে চাবি হাতে দাও নাহলে আমরা তোমায় ধর্ষণ করে ফেলে যাব।

তারপর, অন্য এক দুষ্কৃতী বলে ওঠে, ‘তু তো হামারি মা কি উমার কি হ্যায়, যা তুঝে ছোড় দেতে হেঁ, চুপ রেহ।’ এই বলে তারা আমাকে দড়ি দিয়ে বেঁধে চাবি কোথায় রয়েছে, তা জিজ্ঞাসা করে। চাবি দিতে তখনও অস্বীকার করলে, তাঁকে ফের মারধর করা হয় বলে অভিযোগ ওই মহিলার।

আলমারি থেকে সোনার গয়নার পাশাপাশি মহিলার গায়ে থাকা সোনার গয়নাও নিয়ে যায় তারা। দুষ্কৃতীরা চলে গেলে তাঁকে পিচমোড়া করে বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান প্রতিবেশীরা। এরপর তাঁকে মুক্ত করে মহিলার স্বামী ও দেওরকে ফোন করে জানানো হয়।

খবরটি ইংরেজিতে পড়ুন-





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here